পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনা | West Bengal Gitanjali Housing Scheme 2022, Registration, Eligibility, Benefits

নমস্কার বন্ধুরা কেমন আছেন। আপনাদের সকল কে আমাদের ব্লগ এ স্বাগত জানাই। আপনি কি জানেন পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনা কী এবং আপনি কীভাবে এর সুবিধা নিতে পারেন? পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনা পশ্চিমবঙ্গ সরকার কর্তৃক চালু করা একটি প্রকল্প। এই পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার আওতায় গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র মানুষদের ৫ লক্ষ বাড়ি দেওয়া হবে। পশ্চিমবঙ্গ সরকার তখন গ্রামীণ বেল্টের জনগণকে ব্যাঙ্গালোরের পালা সরবরাহ করবে। বাংলা গ্রাম আবাস যোজনা পশ্চিমবঙ্গের প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনার একটি অংশ। পাশাপাশি, ‘পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনা’র আওতায় বাড়ি নির্মাণের জন্য পশ্চিমবঙ্গের আরও ৩ লক্ষ মানুষকে আর্থিক সহায়তা দেবে সরকার। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে এই বাড়িগুলি ৫ লক্ষ মানুষের মধ্যে বিতরণের কথা ঘোষণা করেছিলেন।

এছাড়াও, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী উত্তর দক্ষিণ করিডর প্রকল্পের আওতায় রাস্তাগুলির উন্নয়নের জন্য ৩০০০ কোটি টাকা ও প্রদান করবেন। কৃষি ক্ষেত্রের প্রচারের জন্য “মাটি উৎসব” এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী এটি ঘোষণা করেছিলেন। এই পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার আওতায় গ্রামাঞ্চলের সমস্ত দরিদ্র ও অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল অংশ বাড়ি পাবেন। রাজ্য সরকার ২৯ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখে বিভিন্ন জেলায় ৫ লক্ষ অভাবী ও গৃহহীন পরিবারকে ডব্লিউবি দ্বারা এই বাড়িগুলি সরবরাহ করবে।

পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনা | West Bengal Gitanjali Housing Scheme 2022

  • পশ্চিমবঙ্গে গীতাঞ্জলি আবাস যোজনা র দুই ধরণের।
  • নগর আবাসন প্রকল্প ও গ্রামীণ আবাসন প্রকল্প।
  • শহুরে এবং গ্রামীণ আবাসন প্রকল্পগুলির সুবিধাগুলিও পৃথকভাবে উপলব্ধ।
  • প্রধানমন্ত্রী শাহরী আবাস যোজনায় সুবিধাভোগীকে ২.৬৭ লক্ষ টাকা এবং প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনায় ১.২০ লক্ষ টাকা ভর্তুকি হিসাবে সুবিধাভোগীকে দেওয়া হয়।
  • শুধু আপনার নাম তালিকায় থাকা উচিত।

পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার সুখ এবং সুবিধা | West Bengal Gitanjali Housing Scheme 2022 : Benefits

  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার আওতায় পশ্চিমবঙ্গ সরকার জোর করে নেওয়া কৃষকদের জমি ফিরিয়ে দিয়েছে।
  • এখন এখানকার কৃষকরা এই জমিতে সোনার ধান উৎপাদন করবে।
  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার আওতায় সুবিধাভোগী শহুরে আবাস যোজনায় ৬৭ লক্ষ টাকা এবং গ্রামীণ আবাস যোজনায় ভর্তুকি হিসেবে সুবিধাভোগীকে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। শুধু আপনার নাম তালিকায় থাকা উচিত।
  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার আওতায় পশ্চিমবঙ্গের দরিদ্রদের বিনামূল্যে বাড়ি দেওয়া হবে।
  • পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার আওতায় গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র মানুষদের ৫ লক্ষ বাড়ি দেওয়া হবে।
  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার আওতায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী উত্তর দক্ষিণ করিডর প্রকল্পের আওতায় রাস্তা গুলির উন্নয়নের জন্য ৩০০০ কোটি টাকা ও প্রদান করবেন।

পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার প্রয়োজনীয় নথি | West Bengal Gitanjali Housing Scheme 2022 : Required Documents

  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার জন্য আবেদনকারী সুবিধাভোগীর অবশ্যই তাঁর আধার কার্ড থাকতে হবে।
  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার জন্য আবেদন করার জন্য ভোটার কার্ড থাকাও বাধ্যতামূলক।
  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার জন্য আবেদনকারী ব্যক্তি পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে|
  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার জন্য আবেদন করার জন্য আপনাকে আপনার আয়ের শংসাপত্রও জমা দিতে হবে।
  • সুবিধাভোগীর জন্য দুটি পাসপোর্ট আকারের ছবি থাকাও বাধ্যতামূলক।
  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার জন্য আবেদনকারী ব্যক্তি যদি বিপিএল পরিবারের হন, তাহলে তাঁর কাছে ও একটি শংসাপত্র থাকা উচিত।

পশ্চিমবঙ্গ গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার অনলাইন নিবন্ধন | West Bengal Gitanjali Housing Scheme 2022 : Registration

  • পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার সুবিধা পেতে আপনাকে প্রথমে এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট  দেখতে হবে।
  • অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যাওয়ার পর আপনাকে ‘গীতাঞ্জলি আবাস যোজনা’ বিভাগে গিয়ে আবেদনপত্রে ক্লিক করতে হবে।
  • ফর্মে ক্লিক করার পরে, আপনাকে আপনার সমস্ত তথ্য সাবধানে পূরণ করতে হবে।
  • সমস্ত তথ্য পূরণ করার পরে, আপনাকে ফর্মটি অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে জমা দিতে হবে।
  • এই সমস্ত কাজ শেষ করার পর আপনি পশ্চিমবঙ্গের গীতাঞ্জলি আবাস যোজনার জন্য যোগ্য হবেন।

দরিদ্রদের বিনামূল্যে যথাযথ আশ্রয় দেওয়ার লক্ষ্যে আবাসন বিভাগের সরকার অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল শ্রেণীর মানুষের জন্য বাড়ি নির্মাণের উপর যথাযথ মনোযোগ দিয়েছে। এই প্রকল্পটি গ্রামাঞ্চলে ৬(ছয়) বিভাগ দ্বারা বাস্তবায়িত হচ্ছে, যেমন, ক) সংখ্যালঘু বিষয়ক ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ, খ) অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ বিভাগ, গ) মৎস্য বিভাগ, ঘ) বন বিভাগ, ই) সুন্দরবন বিষয়ক বিভাগ এবং চ) পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন বিষয়ক বিভাগ এবং অ-পৌর শহরাঞ্চল বিধিবদ্ধ সংস্থা যেমন গীতাঞ্জলি’ এবং গ্রামীণ এলাকায় ‘অমর থিকানা’ নামে ডব্লিউবিএইচবি, ডব্লিউবিএইচআইসিও ইত্যাদি বিধিবদ্ধ সংস্থাগুলি দ্বারা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

West Bengal Sarkari Yojanaग्रेजुएशन कोर्ससरकारी योजनाएं
Spread the love

Leave a Comment